Categories
Uncategorized

Je couche avec mon père depuis l’âge de 18 ans

Une Ghanéenne a fait une révélation choc sur sa vie privée lors d’une émission pour adultes diffusée sur la chaîne de télévision ghanéenne GHOne TV, intitulée Tales from the Powder room, la jeune femme a révélé qu’elle avait des relations sexuelles avec son père biologique.

La dite jeune femme a déclaré qu’elle est maintenant mariée et a deux enfants. Elle a commencé cet acte contre nature avec son père quand elle avait seulement 18 ans, elle a poursuivi en argumentant qu’elle ne pouvait y résister même maintenant qu’elle est mariée et a deux enfants.

Elle aurait même avoué à sa mère cette relation secrète avec son père, celle-ci fut tellement choquée qu’elle finit par en mourir.

Plus bizarre encore, la femme prétend que les deux enfants qu’elle a eus avec son mari appartiennent en réalité a son père.

Elle aurait écrit cette lettre pour demander de l’aide, car elle en a assez de cette liaison avec son père et elle aimerait s’éloigner de lui, car selon elle, son mari est un homme très bon qui ne mérite pas de souffrir de cet acte impardonnable de trahison de sa part.

Voici la lettre ci-dessous :

Chers Tales,

Je suis une femme mariée de 34 ans avec deux enfants. Je suis mariée depuis 7 ans maintenant. Mon mari est très attentionné et c’est le genre d’homme dont toutes les femmes rêvent, mais le problème est le suivant.

Je ne lui suis pas fidèle. Je couche avec mon père depuis l’âge de 18 ans. Ma mère a appris l’existence de cette affaire 4 ans plus tard, elle est tombée malade plus et est morte peu après. J’ai mis la mort de ma mère sur le compte de mes actions et j’ai promis de rester loin de mon père.

Mais je n’ai pas pu m’empêcher de retourner dans le lit de mon papa. Après la mort de ma mère, notre lien s’est encore renforcé et mon mari pense que je passe plus de temps avec mon père à cause de la mort de ma mère.

Tales, mon mari pense que mes deux enfants sont les siens, mais ce sont les enfants de mon père. Les enfants ressemblent à mon papa, mais comme je ressemble aussi à mon père, personne ne se doute de rien.

Ma liaison avec mon père a mis fin à mes relations antérieures parce que je n’ai jamais été satisfaite sexuellement de mes ex-petits amis.

Je ne veux pas perdre mon mari parce qu’il est un homme bon et que je l’aime beaucoup, mais je suis incapable de réduire le lien sexuel entre mon père et moi.

Comment puis-je en parler à mon mari ?

Categories
Uncategorized

শ্বশুরের সাথে ঘনিষ্ঠ ভাবে রাত কাটাতে বা’ধ্য হয় শাহবিনা…

স্বা’মীকে তা’লাক দিলে যখন তাকে বলা হয় দেবরের স’’’ঙ্গে রা’ত কা’টালে তবেই তিনি আবার স্বা’মীকে বিয়ে করতে পারবেন, তখন শাহবিনা প্র’তিবাদে ফেটে পড়েন। দেবরের স’’’ঙ্গে শুতে না-চাওয়ায় তাকে বাড়ি থেকেও বের করে দেওয়া হয়। শাহবিনা এরপ’র যো’গাযোগ করেন লখনৌতে ‘আলা হজরত হেল্পিং সোসাইটি’র প্র’তিষ্ঠাতা নিদা খানের স’’’ঙ্গে। যার জীবনের অ’ভিজ্ঞতাও প্রায় একই রকম।

নিদা খানের বিয়ে হয়েছিল উত্তরপ্র’দেশের একটি অ’ভিজাত মুসলিম প’রিবারের স’ন্তা’ন উস’মা’ন রেজা খানের স’’’ঙ্গে। কিন্তু ২০১৬ সালে তাদের বি’চ্ছেদ হয়ে যায়। নিদা খান তার স্বা’মীর দেওয়া তিন তা’লাকের বি’রু’’দ্ধে ফৌজদা’রি আ’দালতে যান আর সেই মা’মলাও জেতেন।

আ’দালতে তিনি ব’লেছিলেন, তার স্বা’মী এত শারী’রিক ও মা’নসিক অ’ত্যাচা’র করতেন যে তার গ’র্ভপাতও হয়ে গিয়েছিল। বিবাহ-বি’চ্ছিন’’্না নিদা খান অবশ্য তার লড়াই চালিয়ে যা’চ্ছেন। নিজের এনজিও তৈরি করে তিনি তিন তা’লাক ও নিকা হালালের ভি’ক্টিম’দের পাশে দাঁড়াচ্ছেন – আর বেরিলির শাহবিনার পাশে দাঁড়াতেও তিনি এগিয়ে গিয়েছিলেন।

কিন্তু এর প’রই সোমবার বেরিলির শহর ইমাম মুফতি খুর’শিদ আলম নিদা খান ও শাহবিনা দুজ’নের বি’রু’’’দ্ধেই ফতোয়া জা’রি করে প্রকাশ্য বি’বৃতি দিয়েছেন, যাতে বলা হয়েছে ইস’লামকে অ’পমা’ন করার জ’ন্য তাদের ধ’র্ম থেকে বি’তাড়িত করা হচ্ছে “নিদা খান অ’সুস্থ হয়ে পড়লে তাকে কোনও ওষুধ দেওয়া যাব’’ে না। সে মা’রা গেলে তার জ’ন্য কেউ নামাজ পড়বে না, কেউ তার জা’নাজায় যেতে পারবে না,” বলা হয়েছে ওই

ফতোয়ায়, “এমন কী, কব’রস্থানেও তাকে দা’ফন করা যাব’’ে না। যারা তাকে স’ম’র্থন করবে বা তার পাশে দাঁড়াবে, তাদেরও ঠিক এই একই শা’স্তি হবে।” দারুল উলুম দেওবন্দের স্বীকৃত দারুল ইফতা ওই ফতোয়া জা’রি করার প’র থেকেই শাহবিনা ও নিদা খানকে মে’রে ফেলার হু’মকি দেওয়া হচ্ছে ব’লেও তারা অ’ভিযোগ করেছেন। পাঁচ ব্য’ক্তির বি’রু’’দ্ধে তারা একটি এফআ’ইআর-ও দায়ের করেছেন।

বেরিলির পু’লিশ প্রধান অ’ভিনন্দন সিং জানিয়েছেন, ওই অ’ভিযোগের ভিত্তিতে তারা ত’দন্তও শুরু করেছেন। নিদা খান নিজে অবশ্য দা’বি করেছেন এই স’ব হু’মকি-ধমকিকে তিনি মোটেই ভয় পাচ্ছেন না। “যারা এই স’ব ফতোয়া দিচ্ছে তারা পাকিস্তানে গিয়ে ওস’ব করুক, এ দেশে ওস’বের ঠাঁই হবে না। আর আমা’দের ইসলাম থেকে বের করে দেওয়ার অধিকারও কারও নেই”, ব’লেছেন তিনি।

তিন তা’লাকের বি’রু’’দ্ধে একটি বিল এখন ভারতের পা’র্লামেন্টে’র উ’চ্চকক্ষ রা’জ্যসভায় বি’বেচনাধীন আ’ছে। নিকা হালালা বা হিল্লাহ্‌ বিয়ে প্রথার বি’রু’’দ্ধে একটি আবেদনের শু’নানি চলছে সু’প্রিম কোর্টেও। এদিকে গত কয়েক মা’সে শুধুমাত্র উত্তরপ্র’দেশের বেরিলিতেই অ’ন্তত ৩৫টি তিন তা’লাক ও নিকা হালালার অ’ভিযোগ দায়ের করা হয়েছে ব’লে জা’না যা’চ্ছে।

Categories
Uncategorized

স্বামী’কে ছে’ড়ে প্রে’মিকে’র স’ঙ্গে কাটাতেন রা’ত, এক’সঙ্গে’ই হলো লা’শ

বাবাদী’প্ত মজুম’দার জয় ও মিতু সরকার। দুজনই আলাদা ধ’র্মের, তবু জাতকূল ভুলে একে অ’পরকে ভালোবাসতে শুরু করেন। প্রেমের জন্য ১১ বছরের সংসারও ভা’ঙেন মিতু।
কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

এরপর জয়-মিতুর সম্প’র্ক আরো গভীর হয়। ভালোবাসার টানে প্রায়ই মিতুর বাসায় আসতেন জয়। কিন্তু এক রাতেই লা’শ হলো এ প্রেমিক যুগল। বুধবার সকালে মুন্সিগঞ্জ সদর উপজে’লার বাগমামুদ আলী এলাকার আব্দুল কাদিরের বাড়ি থেকে জয় ও মিতুর ঝু’লন্ত লা’শ উ”’দ্ধার করে পু’লিশ।

প্রেমিক যুগল একস’ঙ্গে লা’শ হওয়া নিয়ে এলাকায় চাঞ্চ’ল্যের সৃষ্টি হয়েছে। মিতুর মা শেফালি রানী সরকার আব্দুল কাদিরের বাড়িতে ভাড়া থাকেন। তিনি স্থানীয় ইদ্রাকপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ে বুয়ার চাকরি করেন। তার স্বামী সবজি বিক্রেতা বলরাম চন্দ্র সরকার কিছুদিন হলো মা’রা গেছেন।

১১ বছর আগে ঢাকার কেরানীগঞ্জের এক ছেলের স’ঙ্গে মিতুর বিয়ে হয়। তাদের সংসারে অম্বিকা নামে সাত বছরের একটি সন্তান রয়েছে। কয়েক মাস আগে স্বামীকে তা’লাক দেন মিতু। এরপর থেকেই মায়ের স’ঙ্গে থাকতেন মিতু।
কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

এদিকে, স্বামীর সংসারে থাকতেই আব্দুল মান্নানের ছেলে দী’প্ত মজুম’দার জয়ের স’ঙ্গে মিতু সরকারের প্রেম হয়। মিতু মায়ের বাসায় এলে প্রায়ই এসে রাত কা’টা’তেন জয়। মিতুর বিয়ে বি’চ্ছে’দের পর আরো বেশি আসতেন।

ম’ঙ্গলবার সন্ধ্যায় হোটেল থেকে খাবার নিয়ে মিতুর বাড়িতে আসেন জয়। পরে মেয়ে অম্বিকা ও মা শেফালি রানীসহ একস’ঙ্গে খাবার খান জয়-মিতু। এরপর অম্বিকাকে নিয়ে ঘু’মিয়ে পড়েন প্রেমিক-প্রেমিকা।

বুধবার সকালে মেয়েকে ঘু’ম থেকে তুলতে যান শেফালি। ডা’কাডা’কির একপর্যায়ে নাতনি অম্বিকা মিতুর ক’ক্ষের দরজা খুলে দেয়। কক্ষে ঢুকেই মিতুকে জানালার স’ঙ্গে আর জয়কে ফ্যানের স’ঙ্গে ঝুলতে দেখেন তিনি। পরে তিনি বাড়ির মালিক আব্দুল কাদিরকে খবর দেন।মিতুর মা শেফালি রানী সরকার বলেন, মিতুর স’ঙ্গে জয়ের সম্পর্ক রয়েছে। জয়ের চাপেই মিতু তার স্বামীকে তা’লাক দিয়েছে। তবে ম’ঙ্গলবার রাতে কী ঘটনা ঘটল তা জানা নেই।

সদর থানার ওসি মো. আনিচুর রহমান বলেন, প্রেমিক-প্রেমিকার লা’শ উ’’দ্ধা’র করে সদর হাসপাতাল ম’র্গে পাঠানো হয়েছে। মিতু ও জয়ের এক-দুই বছরের সম্প’র্ক ছিল বলে জানা গেছে। তবে ঘটনাটি সিআইডি তদ’ন্ত করবে।

Categories
Uncategorized

les bienfaits d’une sexualité épanouie sur la santé

Il ne vous a pas échappé que faire l’amour était réputé être bon pour la santé. Que ce soit pour ses effets sur le moral, ou pour ses vertus sur la santé et le maintien du corps en forme, le sexe nous fait du bien. Quels sont les bienfaits d’une sexualité épanouie sur la santé ?

Une sexualité épanouie contribue à notre bien-être
Il est indéniable que le sexe est bénéfique au moral et au bien-être mental. Le plaisir, et notamment l’orgasme, ont plusieurs effets qui peuvent contribuer à notre bonne santé psychique : antidépresseur, tranquillisant, etc. Ceci est principalement dû à l’action des différentes hormones produites pendant l’acte sexuel. De même, le contact physique et le désir exprimé durant l’amour participent à une sensation de bien-être général. Une sexualité épanouie permet également d’améliorer la confiance en soi et l’image que l’on a de nous même. Avoir des relations sexuelles est rassurant et nous permet d’être conscient du désir que l’on suscite. Enfin, en procurant du plaisir à son ou sa partenaire, on contribue également au notre : le fait de pouvoir rendre heureux quelqu’un nous met aussi dans de bonnes conditions mentales.

Le sexe permet de se maintenir en bonne santé
Outre les bienfaits sur le psychique, le sexe a aussi des vertus sur notre santé. En effet, une activité sexuelle régulière permet de pratiquer une activité physique et de se maintenir en forme. Faire l’amour peut aussi être recommandé si l’on souhaite perdre du poids ou surveiller sa balance calorique. 10 minutes de sexe peuvent permettre de dépenser jusqu’à 50 calories, et ceci en alliant l’utile à l’agréable. Comme lorsque l’on fait du sport, le sexe, et d’autant plus s’il est pratiqué à un rythme qui nous convient, a également un pouvoir libérateur. Il est un excellent moyen de se défouler et permet d’évacuer les toxines. Enfin, les endorphines libérées pendant l’acte permettent aussi de procurer une sensation de relâchement physique propice à la détente.

Faire l’amour aide à combattre la migraine et le stress
Le sexe, et plus particulièrement l’orgasme, possède également des vertus sur la migraine. Ceci est dû à l’action des hormones libérées durant le plaisir et l’orgasme, et notamment des endorphines. Ces dernières procurent une sensation de bien-être et contribuent à diminuer la douleur. Le sexe est donc un parfait remède pour combattre le mal de tête. De même, avoir des rapports sexuel permet également de réduire le sentiment de stress et d’anxiété. C’est ici la sérotonine, une hormone sécrétée lorsqu’on fait l’amour, qui procure une sensation d’apaisement général et contribue ainsi à réduire l’anxiété, l’angoisse ou encore les états de stress.

Le sexe aide à réduire les risques de cancer
Plusieurs études attestent qu’avoir des rapports sexuels fréquents permet de réduire le risque de certains cancers. Il a notamment été démontré qu’il existait des liens entre une activité physique régulière et la diminution du cancer de la prostate. C’est l’éjaculation fréquente qui permettrait de réduire les risques de cancer à ce niveau. De même, le sexe est aussi bon pour le fonctionnement du coeur. En effet, faire l’amour permet de maintenir une bonne pression artérielle et de stimuler le système cardiovasculaire. Lorsque l’on a des rapports sexuels, le rythme cardiaque augmente, ce qui stimule la circulation du sang.

Faire l’amour améliore le sommeil et la mémoire
Enfin, le sexe est aussi reconnu pour être bénéfique au sommeil et pour améliorer les capacités de la mémoire. En effet, lors des rapports sexuels, notre production d’ocytocine et de mélatonine augmente. Ces deux hormones contribuent à avoir un sommeil paisible et réparateur. Le sentiment de relâchement qui apparaît quelques instants après l’orgasme est bon pour notre moral. Outre cette sensation de détente, il apporte également un sentiment d’accomplissement et de vigueur, qui nous sont bénéfiques. De même, plusieurs études ont démontré que le sexe stimulait la production de neurones, ce qui a pour effet d’améliorer les capacités de la mémoire, et ceci à tous les âges. Ainsi, faire l’amour aide à prévenir la détérioration ou dégénérescence cognitive et à conserver ses capacités neurologiques optimales plus longtemps.

Categories
Uncategorized

ক’রোনাতে’ও অ’ভিন’ব কায়’দা’য় চল’ছে দে’হ ব্য’ব’সা!

ঢাকা-চট্টগ্রামসহ দেশের বড় নগরীগু’লোতে যুগ যুগ ধ’রে চলে আসছে দে’হ ব্যবসা। বর্তমানে এর পরিমান কয়েকগু’ন বেড়েছে। শুধু আবাসিক হোটেল নয় বাসা-বাড়ীতেও দেদারসে চলছে এই ব্যবসা। ১৫ বছর থেকে শুরু করে বিভিন্ন বয়সের না’রীরা এব্যবসার সাথে জ’ড়িত।

প্রবাসীর স্ত্রী, গার্মেন্টস কর্মী, বিউটিশিয়ান ও উ’ঠতি বয়সের কিছু তরু’নীরা এব্যবসার সাথে জ’ড়িত। তবে এই পেশায় নানান কারণে না’রীরা জ’ড়িত হচ্ছে বলে সামাজিক প্রতিষ্ঠানগু’লো দা’বি করেন। তারা মনে করেন, প্রেমে ব্য’র্থতা, স্বামীর অ’ত্যা’চার, ইয়াবা সে’বন, বিবাহ বি’চ্ছেদ, বিলাসিতা, অতিরিক্ত যৌ’’ন লা’লসা ও দারিদ্রতার কারণে দে’হ ব্যবসায় নামেন এসব না’রীরা।

জানা যায়, চেহেরার সৌন্দর্য্যতার ভিন্নতায় এদের বিভিন্ন মূল্য দেয়া হয়। ১৫০০ থেকে শুরু করে ৫০০০ টাকা পর্যন্ত এদের মূল্য নির্ধারন হয়। বয়সে ছোট ও সুন্দর যৌ’’ন কর্মীর চাহিদা সবার কাছে বেশি। সূত্র জানায়, স্কুল, কলেজ ও বিশ্ববিদ্যালয় পড়ুয়া কিছু মে’য়েরা চাকুরী ও ক্লা’শ করার নামে দিন-রাত বাইরে গিয়ে মূলত দে’হ ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে।

বাসা-বাড়ীতে কিংবা রিসোর্ট ভাড়া নিয়ে বেশকিছু না’রী নিজেকে ছা’ত্রী অথবা গৃহব’ধু পরিচয় দিয়ে দা’লালদের মাধ্যমে অন্যের ভোগের সামগ্রীতে প’রিনত হচ্ছে দিনদিন। অন্য দিকে, বিউটি পার্লারের মালিকরা সুন্দর পার্লার দিয়ে আকর্ষনীয় চেহেরার মেয়ে শি’কারের কাজে অর্থ বিনিয়োগ করে।

এখানে কর্মর’ত বিউটিশিয়ান কিংবা গ্রাহকদের দিয়ে বাড়তি আয়ের প্র’লোভন দেখিয়ে মালিকরা চালায় দে’হ বানিজ্য। তবে এই বানিজ্য পার্লারের বাইরে বাসা-বাড়ীতে হয়। এই কা’য়দায় অনেক গৃহব’ধু, স্কুল ও কলেজ ছাত্রী পার্লার মালিক দ্বারা প্র’তারিত হয়ে স’র্বস্ব হা’রানোরও অ’ভিযোগ রয়েছে।

বিশ্বস্তসূত্র জানায়, স্বামী কিংবা শ্যালিকার বান্ধবী পরিচয় দিয়ে রাখে মেয়েদের। খ’দ্দরদের মেহমান হিসাবে এনে দা’লাল চক্র অনায়সে এই বানিজ্য চালিয়ে যাচ্ছে। একটি সং’ঘব’দ্ধ চ’ক্র গ্রাম থেকে হ’তদরিদ্র পরিবারের মে’য়েদের চাকুরী দেয়ার নামে শহরে নিয়ে আসে।

টাকার লো’ভ, নাহলে জো’র পূর্বক মেয়েদের তাদের দে’হদা’নে বা’ধ্য করে। এক পর্যায়ে মেয়েটি স্বাভাবিকভাবে নিজেকে এই ব্যবসার সাথে মানিয়ে নেয়। হয়ে যান একজন পেশাদার যৌ’’ন কর্মী। অনেক না’রী গার্মেন্টস কর্মী আছেন, যারা টাকা জমানোর আশায় ব্যাচেলর ছেলের সাথে বাসা নেয়। সবাই জানে তারা স্বামী-স্ত্রী। কিন্তু শুধুমাত্র তারাই জানে টাকা বা’চানোর জান্য উভয়ের স্বামী-স্ত্রী হিসেবে থাকা ।

এদিকে, ভাসমান অহরহ দে’হ ব্যবসায়ীদেরও দেখা যাচ্ছে ইদানীং। তারা সামান্য টাকার বিনিময়ে পর পু’রুষের বিছানায় যায়। তাদের বি’রু’দ্ধে হোটেলে উঠে খ’দ্দর থেকে বিভিন্ন মাধ্যমে মোটা অংকের টাকা ছিন’িয়ে নেয়ারও অ’ভিযোগ আছে।

অ’ভিভাবকরা জানান, শহরে আনাচে কানাচে ‘ওপেন’ দে’হ ব্যবসার ছড়াছড়িতে আমর’া স’ঙ্কিত। আমর’া অ’ভিভাবকরা সারাক্ষ’ন চি’ন্তায় থাকি কখন আমা’র ছেলেটা বে’হায়াপনায় জ’ড়িয়ে প’ড়ছে। এবি’ষয়ে জানতে চাইলে এক পু’লিশ কর্মক’র্তা জানান, আমর’া সবসময় দে’হ ব্যবসায়ী চক্রগু’লো ধ’রতে অ’ভিযান চালায়। সাধারণ মানুষের পাশাপাশি অ’ভিভাবকদেরও স’চেতন ‘হতে হবে। তাহলেই সং’ঘব’’দ্ধ চক্রগু’লো ধ্বং’শ হবে। অন্যথায় হাজার অ’ভিযান চালালেও কোন কাজ হবেনা।

পর্যটন স্পটগু’লোকে কেন্দ্র করে চলছে রমর’মা দে’হব্যবসা: দেশের বিভিন্ন পর্যটন স্প’টগু’লোকে কেন্দ্র করে চলছে রমর’মা দে’হ ব্যবসা। পর্যটন এলাকায় আবাসিক হোটেলগু’লোকে নি’রাপদ স্থান হিসাবে ব্যবহার করা হচ্ছে এই অ’সামাজিক কার্যকলাপে।

পাশাপাশি গেস্ট হাউজ ও রেস্টুরেন্টের নামে রয়েছে অহরহ মিনি হোটেল। যাতে রয়েছে ছোট ছোট রুমে অ’বৈধ সম্পর্কে (যৌ’’ন মিলন) লি’’প্ত হওয়ার নি’রাপত্তার ব্যবস্থা। নামে আবাসিক হোটেল, গেস্ট হাউস ও রেস্টুরেন্ট হলেও কাজে মূলত এক একটা বড় আকারের পতি’তালয়।

হোটেল ও রেস্টুরেন্টে পর্যটক নয় প্রতিদিন ভিড় জমায় যুবক যুবতী ও যৌ’’ন কর্মীরা। পার্কের নামে হোটেল, রেস্টুরেন্ট ও গেস্ট হাউজে এসে অ’বৈধ সম্পর্কে (যৌ’’ন মিলন) লি’’প্ত হয় উঠতি বয়সের তরু’ন-তরু’নী ও যৌ’’ন কর্মীরা। নাম প্রকাশে এক ব্যবসায়ী জানান, হোটেলগু’লোর প্রতিদিনের গেস্ট ত’রুন-ত’রুনী ও যৌ’’ন কর্মীরা। তারা হোটেল, রেস্টুরেন্টে বা গেস্ট হাউজে ঢুকবে, ঘন্টা দুয়েক অবস্থান করবে, তারপর চলে যাব’ে। এখানে তেমন কোন বাইরের গেস্ট আসেনা। আসলেও বেশির ভাগ অন্যত্রে গিয়ে অবস্থান করে।

Categories
Uncategorized

স্ত্রী’র ‘আপ’ত্তিক’র’ ভিডি’ও ফে’সবু’কে দিলে’ন স্বা’মী

কুষ্টিয়ায় এক কলেজ ছাত্রীকে ধ’র্মান্তরিত করে বিয়ের পর তার মাথার চুল কে’টে দিয়ে সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুকে ন’গ্ন ছবি ছড়িয়ে দেয়ার অ’ভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় প্রতারক স্বামী নাজমুল হোসেনকে গ্রে’ফতার করেছে পু’লিশ।

সোমবার (১ অক্টোবর) সন্ধ্যা ৭টার দিকে শহরের পাঁচ রাস্তার মোড় শাপলা চত্বর এলাকা থেকে তাকে গ্রে’ফতার করে কুষ্টিয়া মডেল থানা পু’লিশ।

এর আগে, সোমবার দুপুরে ওই সংখ্যালঘু কলেজ ছাত্রী প্রতারক নাজমুল হোসেন নামের ওই স্বামীর বিরু’দ্ধে কুষ্টিয়া মডেল থানায় তথ্য প্রযুক্তি আইনের ৫৭ ধা’রায় একটি অ’ভিযোগ দায়ের করে।

এ বি’ষয়ে কুষ্টিয়া মডেল থানার ওসি নাসির উদ্দিন জানান, এ ঘটনায় থানায় মা’মলা দায়ের হয়েছে। প্রতারক আ’সামি নাজমুলকে গ্রে’ফতারের কথা স্বীকার করেছেন তিনি।

ভুক্তভোগী কুষ্টিয়া সরকারি কলেজের বি.বি.এ ১ম বর্ষের সোমা রাজবংশী ওরফে মোছা: আয়েশা খাতুন নামের ওই সংখ্যালঘু ছাত্রী জানান, প্রায় ৪ বছর আগে কুষ্টিয়া সরকারি মহিলা কলেজে যাওয়া-আসার পথে

কুষ্টিয়া পৌর এলাকার জুগিয়া হাট পাড়ার রফিকুল ইসলামের ছেলে নাজমুল হোসেন তাকে প্রায়ই উত্য’ক্ত করত। নাজমুল সে সময় ওই ছাত্রীর কাছে সংখ্যালঘু হিসেবে নিজের পরিচয় দেয়। এক পর্যায়ে নাজমুলের স’ঙ্গে ওই কলেজ ছাত্রীর প্রেমের সম্পর্ক গড়ে ওঠে।

তাদের মধ্যে সম্পর্ক চলাকালীন ২০১৫ সালের ২৪ নভেম্বর নাজমুল ওই ছাত্রীকে বিয়ের প্রস্তাব দেয় এবং কুষ্টিয়া সদর উপজে’লার বটতৈল এলাকার স্থানীয় এক কাজীর কাছে তাকে নিয়ে যায়। এ সময় প্রতারক নাজমুল হোসেন ওই ছাত্রীকে বলেন, ‌‘আমি মুসলমান তোমাকেও মুসলমান ‘হতে হবে’। মুসলিম পরিচয় জানার পরে ওই ছাত্রী নাজমুলকে বিয়ে করতে এবং নিজের ধ’র্ম পরিবর্তন করতে অস্বীকৃতি জানায়।

সে সময় নাজমুল ও তার স’ঙ্গে থাকা অজ্ঞাত ৩-৪ জন মিলে ওই ছাত্রীকে ভয়-ভীতি দেখিয়ে জোরপূর্বক আগে থেকে সম্পন্ন করে রাখা দুইটি ষ্ট্যাম্পে স্বাক্ষর করিয়ে নেয় এবং নোটারী পাবলিক দিয়ে মুসলমান হিসেবে হলফ নামা করে তাকে বিয়ে করে।

আর বিয়ের কাবিন নামায় ওই কলেজ ছাত্রীর বাবার সঠিক নাম সুজন রাজবংশী বদলে লেখা হয় শেখ ইমতিয়াজ আলী এবং মায়ের নাম মালা রাজবংশীর পরিবর্তে লেখা হয় আফরোজা বেগম মালা। পরবর্তীতে ওই ছাত্রী ও তার দরিদ্র পরিবার সেই বিয়ে মেনে নিতে বাধ্য হয় এবং নাজমুলের স’ঙ্গেই সংসার করা শুরু করে। এ সময় নাজমুল শহরের ছয় রাস্তার মোড়ের পাশে এবং জেলখানা মোড়ে বাসা নিয়ে স্বামী-স্ত্রী রূপে বসবাস করতে থাকে।

কিন্তু, বিয়ের এক-দেড় বছর পরে ওই ছাত্রী মেয়েটি জানতে পারে নাজমুল বিবাহিত, তার দুইটি সন্তান রয়েছে এবং সে ইয়াবাসহ মা’দক ব্যবসার সাথে জড়িত। এটা জানার পর এ বি’ষয়ে তার স্বামী নাজমুলকে জিজ্ঞেস করলে ওই ছাত্রীর উপর শারীরিক নি’র্যাতন শুরু করে। নি’র্যাতনের অতিরিক্ত মাত্রা পৌঁছালে ওই ছাত্রী রাগ করে বাবার বাড়ি চলে আসতে বাধ্য হয়।পরে গত ২৬ জুন নাজমুল ওই ছাত্রীর বাবার বাড়িতে এসে ভুল স্বীকার করে ক্ষ’মা চাই।

স্ত্রীও ক্ষ’মা করে দেয় এরপর মন ভালো করার নামে নাজমুল বেড়াতে যাওয়ার কথা বলে মোটরসাইকেলে করে কুষ্টিয়ার মিরপুর উপজে’লার বহলবাড়ীয়া সাতবাড়ীয়া মাঠের মধ্যে নিয়ে গিয়ে ওই ছাত্রীকে এলোপাতাড়ি চড়-থাপ্পড় মা’রা শুরু করে। এক পর্যায়ে তার পকে’টে থাকা কাইচি দিয়ে জোরপূর্বক মেয়েটির মাথার চুল কে’টে দেয় প্রতারক নাজমুল। এখানেই শেষ নয়, ওই ছাত্রীর ব্যবহৃত মোবাইল ফোনটি ছিন’িয়ে নেয় সে। এ সময় মেয়েটির চিৎকার শুনে স্থানীয়রা এগিয়ে আসলে নাজমুল পালিয়ে যায়।

এই খবর শোনা মাত্র তার পরিবারের লোকজন ঘটনাস্থলে গিয়ে তাকে উ’দ্ধার করে বাড়িতে নিয়ে আসে।চাঞ্চল্যকর এ ঘটনার পর থেকে নাজমুল ওই ছাত্রী এবং তার বাবা-মা সহ পরিবারের অন্যদেরকে হু’মকি দেয়, এ ঘটনায় কোন প্রকার আইন-আ’দালতের আশ্রয় নিয়ে তাদের স্বামী-স্ত্রী হিসেবে বসবাস করার সময়কার শারীরিক সম্পর্কের ছবি এবং ভিডিও তার আ’ত্মীয়-স্বজনসহ এলাকার বিভিন্ন লোকজনের কাছে এমনকি সামাজিক যোগাযোগমাধ্যম ফেসবুক, ইন্টারনেটে ছড়িয়ে দেবে।

নাজমুল আগে থেকেই ওই ছাত্রীর ফেসবুক আইডির পাসওয়ার্ড জানার সুবাদে অ্যাকাউন্টটি নিজের আয়ত্তে নিয়ে উক্ত ফেসবুক আইডি থেকে ছাত্রীর আ’ত্মীয়-স্বজনদের কাছে গো’পনে ধারণ করা ন’গ্ন ছবি ম্যাসেঞ্জারের মাধ্যমে পাঠিয়ে দেয়। ফলে ওই ছাত্রী পারিবারিক এবং সামাজিকভাবে চরম হেয় প্রতিপন্ন হয়।প্রতারক নাজমুল গত ৫ সেপ্টেম্বর দুপুরে দিকে ওই ছাত্রীর খালাতো ভাইয়ের ফেসবুক আইডিতে। এর পরের দিন গত ৬ সেপ্টেম্বর রাতে ওই ছাত্রীর জামাই বাবু দেবাশীষ বিশ্বা’সের ফেসবুক আইডিতে তার বিব’স্ত্র ও শারীরিক মিলনের ন’গ্ন ছবি পাঠায়।

এ ঘটনায় ওই ছাত্রী মানসিকভাবে চরম ভেঙে পড়ে। এখানেই শেষ নয় নাজমুল ওই ছাত্রী ও তার পরিবারকে মোবাইল ফোনে কল করে এবং ম্যাসেজ দিয়ে বিভিন্ন প্রকার হু’মকি-ধমকি দিয়ে আসছে বলে জানা যায়। এমন হু’মকির কারণে ওই ছাত্রী ও তার পরিবার বর্তমানে চরম নিরাপত্তাহীনতায় ভুগছে বলেও জানা গেছে।নাজমুলের অব্যা’হত হু’মকির কারণে তার পড়াশোনা এবং কলেজ যাওয়া বন্ধ হয়ে গেছে। জানা যায়, প্রতারণার শিকার সংখ্যালঘু সোমা রাজবংশী নামের ওই কলেজ ছাত্রী পৌর এলাকার বারখাদা উত্তর পাড়া এলাকার দিনমজুর সুজন রাজবংশী ও সোমা রাজবংশীর একমাত্র কন্যা।

Categories
Uncategorized

মি’লনের সময় মে’য়েদের কয়বার বী’র্যপাত হওয়া দরকার? ছেলেদের জানা উচিত…

হ’স্তমৈ’থু‌ন বা স’’ঙ্গমের শেষে বী’র্যপাত ঘটার পর প্র’স্রাব করতে গেলে অসু’বিধা হচ্ছে,প্র’স্রাব ‘হতে চাইছে না, অথবা পু’রুষা’’ঙ্গে জ্বা’’লা অনুভূ’ত হচ্ছে।। তাঁদের মনে প্রশ্ন জেগেছে, বি’ষয়টা কি স্বাভাবিক?ডাক্তারেরা জানাচ্ছেন, বী’র্যপাত হওয়ার পরে প্র’স্রাবে অ’সুবিধা অনুভব করা অত্যন্ত স্বাভাবিক। আসলে যৌ’’ন উ’ত্তেজনার সময়ে পু’রুষ শরীরের প্র’স্টেট গ্রন্থিটি স্ফী’ত হয়ে ওঠে।এই প্র’স্টেটের অবস্থান অ’ণ্ডকোষ ও পা’য়ুর মাঝামাঝি অংশে। বী’র্যকে ঠিক পথে চালিত করা এই গ্রন্থির কাজ। বী’র্যপাতের পূর্বে এই অংশে যে সং’কোচন-প্র’সারণ ঘটে তার ফলেই প্র’স্টেটটি ফুলে যায়।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

এই স্ফীতির ফলে প্র’স্রাব মূ’ত্রথলি থেকে বাধাহীন ভাবে নি’র্গত ‘হতে পারে না। সেই কারণে অ’সুবিধা ঘটে প্র’স্রাবে।অনেক পু’রুষই লক্ষ করেছেন, হ’স্তমৈ’থু‌ন বা স’ঙ্গমের শেষে বী’র্যপা’ত ঘটার পর প্র’স্রাব করতে গেলে অসুবিধা হচ্ছে, প্র’স্রাব ‘হতে চাইছে না, অথবা পু’রুষা’’ঙ্গে জ্বা’’লা অনুভূ’ত হচ্ছে। তাঁদের মনে প্রশ্ন জেগেছে, বি’ষয়টা কি স্বাভাবিক?ডাক্তারেরা জানাচ্ছেন,বী’র্যপা’ত হওয়ার পরে প্র’স্রাবে অসু’বিধা অনুভব করা অত্যন্ত

স্বাভাবিক। আসলে যৌ’’ন উ’ত্তেজনার সময়ে পু’রুষ শরীরের প্র’স্টেট গ্রন্থিটি স্ফী’ত হয়ে ওঠে। এই প্রস্টেটের অবস্থান অ’ণ্ডকো’ষ ও পা’য়ুর মাঝামাঝি অংশে। বী’র্যকে ঠিক পথে চালিত করা এই গ্রন্থির কাজ।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

বী’র্যপা’তের পূর্বে এই অংশে যে সং’কোচন-প্র’সারণ ঘটে তার ফলেই প্র’স্টেটটি ফুলেযায়। এই স্ফী’তির ফলে প্র’স্রাব মূ’ত্রথলি থেকে বাধাহীন ভাবে নি’র্গত ‘হতে পারে না। সে কারণে অসু’বিধা ঘটে প্রস্রাবে।আসলে যৌ’’ন উ’ত্তেজনার সময়ে পু’রুষ শরীরের প্র’স্টেট গ্রন্থিটি স্ফী’ত হয়ে ওঠে।এই প্র’স্টেটের অবস্থান অ’ণ্ডকোষ ও পা’য়ুর মাঝামাঝি অংশে।

Categories
Uncategorized

যৌ,ন উ’ত্তেজক ট্যা’বলেট গ্রহণ নিয়ে কিছু কথা,

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

উ,ত্তেজক ট্যাবলেট বর্তমানে দেশজুড়ে ই,য়াবা নামক এক ধরনের যৌ… উত্তেজক ওষুধ সে,বনের প্র,বণতা বেড়ে গেছে বলে প্রায়ই সংবাদপত্র
ও টেলিভিশনের খবরের শিরোনাম হচ্ছে।সত্যিকথা বলতে কি, এসব ওষুধ জীবন শুধু ধ্বংসের দিকেই ঢেলে দেয়, সুখকর কিছু দেয় না।
সুখকর দাম্পত্য জীবনের জন্য যৌ’নবি ষয়ক জ্ঞান রাখা সব নারী-পুরুষের একান্ত প্রয়োজন।

কারণ সা,মান্য ভুলের মা,সুল গু,নতে হতে পারে সারাজীবন।যেসব পুরুষ বা নারী শখের বশে বা নিয়মিত স,হ,বাসের আগে যৌ’ন উ,ত্তেজক
ওষুধ, যেমন ই,য়াবা, ভায়া,গ্রা বা অন্য কোনো ধরনের ট্যা,বলেট সেবন করেন, তাদের জন্য এ ওষুধগুলোই এক সময় দাম্পত্য সম্পর্ক
টিকিয়ে রাখার ক্ষেত্রে হু,মকির কারণ হিসেবে দেখা দিতে পারে।

কারণ এ ধরনের ওষুধ ধ্ব,জভ,ঙ্গ রোগের দিকে ঠেলে তো দেয়ই, কিছু ক্ষেত্রে মৃ,ত্যু,র দিকেও ঠেলে দেয়।অনেকেরই হয়তো অজানা, যৌ’নশ,ক্তি
বাড়াতে কোনো ওষুধ সে,বনের প্রয়োজন নেই।ক্ষেত্রবিশেষে চিকিৎসকরা কিছুদিন ওষুধ সে,বনের উপদেশ দিয়ে থাকেন। গবেষণায় দেখা গেছে,
পুরুষরা পুষ্টিকর খাদ্য খাওয়ার মাধ্যমেই যৌ’নশক্তি পেয়ে থাকেন। এ ক্ষেত্রে মধু, খাঁটি দুধ ও ডিমের ভূমিকা অতিগুরুত্বপূর্ণ।ডিমের ক্ষেত্রে
হাঁসের ডিম এবং দুধের ক্ষেত্রে ছাগলের দুধ প্রাধান্য দিতে পারেন।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

তবে হোমিওপ্যাথি কিছু ওষুধ আছে, যা কাজে এ ক্ষেত্রে বেশ কার্যকর এবং পা,র্শ্বপ্রতিক্রি,য়াহীন। যারা নিয়মিত যৌ’ন উত্তেজক বিভিন্ন ধরনের
ওষুধ সে,বন করে থাকেন, তারা ক্রমে এসবের প্রতি নির্ভরশীল হয়ে পড়েন।পরিণামে কোনো কোনো পুরুষ পুরোপুরি যৌ’নক্ষমতায় অ,ক্ষম হয়ে
পড়েন। একটা সময় পরে ওই ওষুধগুলো শরীরে আর কাজ করে না।একই সঙ্গে অনেকের অভ্যন্তরীণ অঙ্গ,গুলো বিরূপ পা,র্শ্বপ্রতি,ক্রিয়ার শি,কার হয়।

Categories
Uncategorized

ছবিটি জুম করে দেখুন মেয়েটি কি করছে

ছবিটি জুম করে দেখু’ন- আজকাল কার দিনে সোশ্যাল মিডিয়ার চলন সব থেকে বেশী হচ্ছে । এমন কেউ আর নেই যে এই ইন্টারনেট ব্যবহার করে না । আর তাই কোন জিনিস সহজে ভাইরাল হয়ে এক জায়গা থেকে অন্যে জায়গায় ছবড়িয়ে পড়ছে ।আর কেউ কিছু আলাদা জিনিস দেখতে পেলে এটির ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দিয়ে থাকে । আর স’ঙ্গে স’ঙ্গে মানুষ সেটিকে শেয়ার করে দেয় আর তাঁর ফলে সেটি ভাইরাল হয়ে যায় ।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

আর মাঝে মাঝে এমন কিছু ছবি থাকে যেগু’লি দেখলে সাধারন বলে আপনার মনে হলেও তা একদম সাধারন বলে মনে হয় না । আর সেই সব ছবির মধ্যে লুকিয়ে থাকে একটি বড় রহস্য । আর কিছু ছবি জুম করে দেখলে তাঁর আসল রহস্যের কথা জানতে পারা গিয়ে থাকে । আর সেই রকই কিছু ছবি আজ আমর’া নিয়ে এসেছি ।আর আজ আমর’া আপনাদের এমন ছবি দেখাতে যাচ্ছি যেগু’লি দেখলে আপনি হেসে ফেলবেন আর এই সব ছবিগু’লি আপনি আগে কখন কোথাও দেখেওনি ।আর বলা হয়ে থাকে আমর’া যেসব জিনিস গু’লি যেরকম নজরে দেখে থাকি সেই সব জিনিস গু’লি আমর’া সেই রকমি দেখতে পায় সাধারন দেখতে পায় ।আর এই সব ছবি গু’লি দেখলে আপনি মজাও পাবেন । আর তবে এই সব ছবি গু’লি একবার নয় অনেক বার ধরে দেখতে হবে আপনাকে । আসলে এই সব ছবিগু’লি এমন সময়ে তোলা হয়েছে যেটির দেখার পর আপনি অনেক মজা পাবেন ।

আর এই ছবির রহস্য বোঝার জন্যে আপনাকে অনেক বার দেখতে হবে ।আর এমন ছবি আপনাদের দেখাতে যাচ্ছি যেটি দেখলে আপনার মনোরঞ্জন হবে । আর আপনার মুখে একটি হাসিও নিয়ে আসবে এই সব ছবিগু’লি । আর এই সব ছবিগু’লি দেখু’ন জুম করার পর আপনি আলাদা জিনিস দেখতে পবানে এর মধ্যে । আর এই ছবিগু’লি আপনি বারবার দেখতে পছন্দ করবেন ।এই ছবিটিতে দেখু’ন মেয়েটিকে তাঁর বাবা মা পড়াশুনা করার জন্যে পাঠিয়েছে , আর মেয়েটি সেখানে গিয়ে পড়াশুনার বদলে অন্য কিছু করছে । আসলে সকল বাবা মা চায় তাঁর সন্তান বড় হোক মানুষের মত মানুষ হোক কিন্তু এই মেয়েটি ঘু’মিয়ে পড়েছে পড়াশুনা করার বদলে ।আজকাল কার দিনে সোশ্যাল মিডিয়ার চলন সব থেকে বেশী হচ্ছে । এমন কেউ আর নেই যে এই ইন্টারনেট ব্যবহার করে না । আর তাই কোন জিনিস সহজে ভাইরাল হয়ে এক জায়গা থেকে অন্যে জায়গায় ছবড়িয়ে পড়ছে । আর কেউ কিছু আলাদা জিনিস দেখতে পেলে এটির ছবি তুলে সোশ্যাল মিডিয়ায় পোস্ট করে দিয়ে থাকে । আর স’ঙ্গে স’ঙ্গে মানুষ সেটিকে শেয়ার করে দেয় আর তাঁর ফলে সেটি ভাইরাল হয়ে যায় ।

আর মাঝে মাঝে এমন কিছু ছবি থাকে যেগু’লি দেখলে সাধারন বলে আপনার মনে হলেও তা একদম সাধারন বলে মনে হয় না । আর সেই সব ছবির মধ্যে লুকিয়ে থাকে একটি বড় রহস্য । আর কিছু ছবি জুম করে দেখলে তাঁর আসল রহস্যের কথা জানতে পারা গিয়ে থাকে । আর সেই রকই কিছু ছবি আজ আমর’া নিয়ে এসেছি ।আর আজ আমর’া আপনাদের এমন ছবি দেখাতে যাচ্ছি যেগু’লি দেখলে আপনি হেসে ফেলবেন আর এই সব ছবিগু’লি আপনি আগে কখন কোথাও দেখেওনি ।আর বলা হয়ে থাকে আমর’া যেসব জিনিস গু’লি যেরকম নজরে দেখে থাকি সেই সব জিনিস গু’লি আমর’া সেই রকমি দেখতে পায় সাধারন দেখতে পায় ।আর এই সব ছবি গু’লি দেখলে আপনি মজাও পাবেন । আর তবে এই সব ছবি গু’লি একবার নয় অনেক বার ধরে দেখতে হবে আপনাকে । আসলে এই সব ছবিগু’লি এমন সময়ে তোলা হয়েছে যেটির দেখার পর আপনি অনেক মজা পাবেন ।

কবিরাজ: তপন দেব । এখানে আয়ুর্বেদী ঔষধের মাধ্যমে- আমাদের এখানে নারী ও পুরুষের সকল #যৌন_রোগ সহ জটিল ও কঠিন রোগের সু চিকিৎসা করা হয়।
বিঃ দ্রঃ আমাদের এখান থেকে দেশে ও বিদেশে কুরিয়ার করে ঔষধ পাঠানো হয়। আপনার চিকিৎসার জন্য আজই যোগাযোগ করুন – ০১৮২১৮৭০১৭০

আর এই ছবির রহস্য বোঝার জন্যে আপনাকে অনেক বার দেখতে হবে ।আর এমন ছবি আপনাদের দেখাতে যাচ্ছি যেটি দেখলে আপনার মনোরঞ্জন হবে । আর আপনার মুখে একটি হাসিও নিয়ে আসবে এই সব ছবিগু’লি । আর এই সব ছবিগু’লি দেখু’ন জুম করার পর আপনি আলাদা জিনিস দেখতে পবানে এর মধ্যে । আর এই ছবিগু’লি আপনি বারবার দেখতে পছন্দ করবেন ।এই ছবিটিতে দেখু’ন মেয়েটিকে তাঁর বাবা মা পড়াশুনা করার জন্যে পাঠিয়েছে ,আর মেয়েটি সেখানে গিয়ে পড়াশুনার বদলে অন্য কিছু করছে । আসলে সকল বাবা মা চায় তাঁর সন্তান বড় হোক মানুষের মত মানুষ হোক কিন্তু এই মেয়েটি ঘু’মিয়ে পড়েছে পড়াশুনা করার বদলে ।

Categories
Uncategorized

Hello world!

Welcome to WordPress. This is your first post. Edit or delete it, then start writing!